Home বলিউড অভিনয় কোনো পেশা নয়, একটি জীবনধারা

অভিনয় কোনো পেশা নয়, একটি জীবনধারা

janhvi kapoor model and hotest pictures

বছরের শুরুতেই মা শ্রীদেবীকে হারিয়েছেন জাহ্নবী কাপুর। কিন্তু চলমান জীবন থমকে থাকেনি বলিউডের প্রথম নারী সুপারস্টারের পরিবারের। তার পরিবারের সদস্যরা ঠিকই শোক কাটিয়ে ব্যস্ত হয়ে যান যার যার কাজে। সেই হিসেবে নিজের জীবনের প্রথম সিনেমার শুটিংও শেষ করেন জাহ্নবী।

জনপ্রিয় মারাঠি সিনেমা নাগরাজ মঞ্জুলের ‘সাইরাত’-এর হিন্দি রিমেকে অভিনয় করেছেন জাহ্নবী। এতে জাহ্নবীর বিপরীতে অভিনয় করেছেন শহীদ কাপুরের ভাই ঈশান খাট্টার। মারাঠি সিনেমা ‘সাইরাত’-এর জনপ্রিয়তার সূত্র ধরেই এর হিন্দি রিমেক করার কথা ভাবা হয়।

জাহ্নবী অভিনীত হিন্দি রিমেক সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন শশাঙ্ক খৈতান। করণ জোহরের ধর্ম প্রোডাকশনের ব্যানারে নির্মিত ‘সাইরাত’ মূলত একটা প্রেমের গল্প। প্রেমকে ঘিরে পারিবারিক সম্মান রক্ষার্থে খুনের ঘটনার ওপরই তৈরি হয়েছিল মারাঠি সিনেমাটি।

আগামীকাল মুক্তি পাবে জাহ্নবী কাপুর অভিনীত করণ জোহর প্রযোজিত সিনেমা ‘ধাড়াক’। স্বাভাবিকভাবেই খুবই ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন জাহ্নবী। এরই মধ্যে ভারতীয় গণমাধ্যম ‘ইন্ডিয়া ওয়েস্ট’-এ একটি সাক্ষাৎকার দিলেন শ্রীদেবী কন্যা। এই সাক্ষাৎকারে উঠে এসেছে জাহ্নবীর জীবনযাপন, পরিবার, মা শ্রীদেবী, পড়াশোনা ও অভিনেত্রী হওয়ার স্বপ্নের নানা বিষয়।

সাক্ষাৎকারে জাহ্নবী জানান, তিনি স্বনামধন্য পরিবারে জন্ম নেওয়া বনি কাপুর ও শ্রীদেবীর কন্যা হলেও তিনি ‘দ্বিতীয় শ্রীদেবী’ হতে চান না। মায়ের দিয়ে যাওয়া পরামর্শ অনুসরণ করে তিনি বলিউডের ‘প্রথম জাহ্নবী’ হতে আগ্রহী। শ্রীদেবী চাইতেন, তার সন্তানরা নিজ পরিচয়েই বড় হোক। আর তাই তিনি তার মায়ের সঙ্গে নিজের কোনো তুলনা চান না।

‘ধাড়াক’ সিনেমার কোনো দৃশ্য কি দেখে যেতে পেরেছিলেন আপনার মা শ্রীদেবী?

জাহ্নবী: তিনি দেখেছিলেন। আমার অভিনীত সিনেমার শুটিংয়ের প্রথম দিকের ২০ মিনিটের দৃশ্য তিনি দেখেছিলেন।

এবং এটি দেখে তার মন্তব্য কী ছিল?

জাহ্নবী: (উচ্ছ্বসিত হয়ে) আমি সেটি আপনাকে বলব না। এটি একেবারেই ব্যক্তিগত। একজন মা হিসেবে তিনি খুবই মিষ্টি করে মন্তব্য করতে বাধ্য হলেও তিনি কিছুটা ব্যতিক্রম বলেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, আমাকে ভিন্নভাবে প্রকাশ করতে হবে, যাতে আমাদেরকে কেউ তুলনা করতে না পারে। তিনি বলেছিলেন, একজন ভালো অভিনেত্রী হওয়ার আগে আমাকে একজন ভালো মানুষ হতে হবে। সবার সঙ্গে বিনয়ী হওয়ার পাশাপাশি আমাকে সুশৃঙ্খল ও সময়সচেতন হতে হবে।

আমরা শুনেছি আপনার মা চাইতেন না আপনি একজন অভিনেত্রী হন। 

জাহ্নবী: হ্যাঁ। আমি ফ্যাশন ডিজাইনিং পড়ার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু পরে অনুভব করি, আমার সত্যিকারের দুর্বলতা আসলে কোথায়! লস অ্যাঞ্জেলসে আমি অভিনয়ের ক্লাসে যুক্ত হই। সেখানে আমি অভিনয়ের পাশাপাশি রচনাশৈলী ও নাচের প্রশিক্ষণ নেই। আমার ভিত্তি শক্ত করার জন্য আমি সব করেছি। আমার জন্য অভিনয় কোনো পেশা নয়, এটি একটি জীবনধারার মতো এবং এখানে সবকিছু করতে পারার জন্য প্রতিশ্রুতি দিতে হয়। ঘুমানো থেকে শুরু করে ঘুম থেকে ওঠার মধ্যেই সময়সচেতনতা থাকতে হয়, যাতে আমার চোখের নিচে কোনো কালি জমতে না পারে। আসলে আমি এই সবকিছুই করেছি যা আমার বাবা-মা পর্যবেক্ষণ করেছেন। আমার অভিনয়ের প্রতি আসক্তি তারা দেখেছেন। আর এখান থেকেই আমার যাত্রাটা শুরু।

কোন দিকটা আপনার অভিনয় দক্ষতাকে জ্বলে উঠতে সাহায্য করেছে?

জাহ্নবী: অভিনেতাদের প্রতি অন্য রকম আসক্তি কাজ করে দর্শকদের। আমরা তাদেরকে যা অনুভব করাতে চাই, যেখানে চালিত করতে চাই, যে নতুন বিশ্বের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে চাই, তারা আমাদের সঙ্গে সঙ্গেই থাকেন এবং অনুভব করেন। ধরেন, আমি জাহ্নবী আজকে যদি অন্য কোনো পেশায় থাকতাম, তাহলে কোনো চরিত্রে বেঁচে ওঠার সুযোগ হয়ত পেতাম না।

আপনার বলিউড অভিষেকের অন্যতম সেরা দিক কোনটি? একজন নবাগত অভিনেত্রী হিসেবে আপনার বয়সের তুলনায় আপনি একজন নায়িকার পাশাপাশি একজন শিশুর মায়ের ভূমিকায়ও অভিনয় করেছেন।

জাহ্নবী: আমরা এই দৃশ্যগুলোর শুটিং সবার শেষে ধারণ করেছি। আমি আমার মধ্যে ততদিনে মাতৃত্বকে বিকশিত করে তুলতে সক্ষম হয়েছিলাম। যদিও আমি এর আগে শিশুদের কাছে এতটা পছন্দের ছিলাম না। একজন মায়ের মতো হওয়ার ব্যাপারটি আসলে আমার জন্য বেশ মজার একটি অনুভূতি। তবে হয়তো অনুভূতিটা নিজের মা’কে হারানোর পর আমার মধ্যে গড়ে উঠেছে।

আপনি আপনার মায়ের সঙ্গে সিনেমা নিয়ে আলোচনা করতেন?

জাহ্নবী: তিনি আমাকে নিজে নিজে এগুলো খুঁজে বের করতে বলতেন। তার সঙ্গে শুটিংয়ে গেলে শেখার চেষ্টা করতাম সিনেমা নির্মাণ কীভাবে করতে হয়, তারপর পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ কীভাবে করে। আমি তার কাছ থেকে এগুলো শেখার চেষ্টা করতাম। সিনেমার প্রতি তার আগ্রহ, অভিনয়ের ব্যাপারগুলো তার কাছ থেকেই শুনে শুনে শেখা।

জাহ্নবী কাপুর। ছবি: সংগৃহীত

আপনার জন্য সিনেমায় শ্রীদেবীর সেরা পারফরম্যান্স কোনটি?

জাহ্নবী: আমি শুধু তার পাঁচটি সিনেমা দেখেছি এবং এটিই সত্যি। এই সিনেমাগুলোর মধ্যে আমার প্রিয় সিনেমা ‘সাদমা’।

‘ধাড়াক’ সিনেমায় আপনার চরিত্রটি সম্পর্কে কিছু বলুন।

জাহ্নবী: রাজনৈতিক ঘরানার এক অভিজাত বংশের মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছি। রাজস্থানে অসংখ্য রাজকীয় পরিবারের পাশাপাশি ঐতিহ্যবাহী রাজকীয় হোটেলও রয়েছে। এমন একটি পরিবার থেকে আসা মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছি। একজন মজবুত মনের প্রাণবন্ত, কর্তৃত্বপ্রিয় একটি মেয়ের চরিত্র এটি।

সহ-অভিনেতা হিসেবে ঈশান খাট্টার কেমন ছিলেন?

জাহ্নবী: তিনি অত্যন্ত মেধাবী, চঞ্চল, কাজের ক্ষেত্রে অতি-উৎসাহী। নিজের সর্বোচ্চ মেধা দিয়ে কাজ করার ক্ষমতা রয়েছে তার। ঈশানের কাছ থেকে অনেক কিছু শেখার আছে। আবার একই সময়ে তিনি বেশ মজার মানুষ।

পরিবারের কোন সদস্যের সঙ্গে কাজ করতে চাইবেন?

জাহ্নবী: সবার মধ্যে আমি চাচ্চুর (অনিল কাপুর) সঙ্গে কাজ করতে চাইব।

জাহ্নবী কাপুর। ছবি: সংগৃহীত

আপনার পুরো পরিবার একই সিনেমাতে রয়েছে, এমন সিনেমায় কাজ করতে চাইবেন?

জাহ্নবী: আমি অবশ্যই এমন সিনেমায় কাজ করতে চাইব। কিন্তু এই কাজ করলে সর্বমোট খরচ হয়তো ১০ হাজার কোটি রুপির চেয়েও বেশি পড়বে। আবার হয়তো এর কাজ কখনোই শেষ হবে না। আবার হয়তো দেখা যাবে, আমরা আমরাই সিনেমাটি প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে দেখছি।

এখন পর্যন্ত আপনাকে নিয়ে সবচেয়ে মজার গুজব কী ছিল?

জাহ্নবী: একবার আমার একটি ছবি তোলা হয়েছিল, যাতে দেখা গিয়েছিল আমি সন্ত্রাসবাদ নিয়ে একটি বই পড়ছি। আর সবাই ধরে নিয়েছিল আমি সন্ত্রাসবাদ নিয়ে সিনেমায় অভিনয় করছি।

‘ধাড়াক’-এর পর বিরতি নেবেন?

জাহ্নবী: মোটেও না। আমি শুটিংয়ে যাওয়ার জন্য ব্যাকুল হয়ে আছি। এবার আমি কমেডি ঘরানার সিনেমায় অভিনয় করতে চাই।

সূত্র: ইন্ডিয়া ওয়েস্ট

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here