Home আন্তর্জাতিক প্রতিরক্ষা খাতে জাপানের কোটি কোটি ডলার যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রে

প্রতিরক্ষা খাতে জাপানের কোটি কোটি ডলার যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রে

জাপান কোটি কোটি ডলার ব্যয়ে মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাপদ্ধতি কিনছে। সম্প্রতি জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এ কথা জানান। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থাসহ কোটি কোটি ডলারের নানা পণ্য কেনার আগ্রহ দেখিয়েছে জাপান।

আগামী সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষেপণাস্ত্র সুরক্ষাব্যবস্থা বা মিসাইল ডিফেন্স সিস্টেম কেনার বিষয়টি ঠিক করতে পারে জাপান। সূত্র বলছে, উন্নত ক্ষেপণাস্ত্র সুরক্ষাব্যবস্থা হালনাগাদ করার ফলে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দেশটির বাণিজ্য বাধা সহজ হবে এবং উত্তর কোরিয়া ও চীনের মতো শত্রু দেশগুলো থেকে সুরক্ষিত থাকবে।

ভূ-ভিত্তিক এইজিস অ্যাশোর সিস্টেম নামের ক্ষেপণাস্ত্র সুরক্ষাব্যবস্থা কেনার কথা উল্লেখ করে জাপানের এক সরকারি কর্মকর্তা বলেন, এইজিস বড় ধরনের সামরিক ক্রয়। এটি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জন্য বড় একটি উপহার হবে।

২০২৩ সাল নাগাদ ওই প্রতিরক্ষাব্যবস্থা স্থাপন করতে চান জাপানের কর্মকর্তা। আগামী সোমবারের মধ্যে দুটি ভূ-ভিত্তিক সিস্টেম পছন্দ করতে পারেন তাঁরা।

আগস্টে একটি প্রতিরক্ষা বাজেট প্রস্তাবে এটি যুক্ত হতে পারে বলে তিনটি সূত্র রয়টার্সকে নিশ্চিত করেছে।

জাপানিরা যে দুটি ক্ষেপণাস্ত্রব্যবস্থা পছন্দ করেছে, তার একটি হচ্ছে রেথিয়ন কোম্পানির তৈরি স্পাই-৬ ও আরেকটি লকহিড মার্টিনের তৈরি লং রেঞ্জ ডিসক্রিমিনেশন রাডার (এলআরডিআর)। গত বছর জাপান যখন স্পাই-৬ কেনার আগ্রহ দেখিয়েছিল, ওয়াশিংটনের পক্ষ থেকে তা সরবরাহে গড়িমসি দেখা যায়।

১২ জুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের মধ্যে বৈঠকের ফলে উত্তেজনা কমা সত্ত্বেও জাপানের কাছ থেকে প্রতিরক্ষা বাজেট বাড়ানোর প্রস্তাব এল। এখন পর্যন্ত অবশ্য উত্তর কোরিয়াকে বিপদ হিসেবেই দেখছে জাপান। এ ছাড়া চীনের সামরিক শক্তি বৃদ্ধিকেও তারা দীর্ঘমেয়াদি হুমকি মনে করছে।

গত বছরের নভেম্বরে টোকিও সফরে জাপানের এফ-৩৫ স্টেলথ ফাইটার বিমান ক্রয়কে স্বাগত জানান ট্রাম্প এবং যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে আরও অস্ত্র ও পণ্য কেনার যুক্তি তুলে ধরেন। এরপর থেকে মার্কিন পণ্য কিনতে তিনি নানাভাবে জাপানের ওপর চাপ দিয়ে আসছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থা কেনা প্রসঙ্গে জাপানের এক কর্মকর্তা বলেন, জাপানের এটা প্রয়োজন আছে বলেই কেনা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here